সদর উপজেলার উন্নয়নের কাজের প্রতিশ্রুতি দেন চেয়ারম্যান তৌহিদ চাকলাদার ফন্টু

আরো পড়ুন

২৯ মে যশোর সদর উপজেলা পরিষদের নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করছেন তরুণ শিল্প উদ্যোক্তা, ক্রীড়া সংগঠক ও সমাজসেবী তৌহিদ চাকলাদার ফন্টু। তার প্রতীক মোটরসাইকেল। সদর উপজেলাকে স্মার্ট, বেকারদের কর্মসংস্থান সৃষ্টি, প্রধানমন্ত্রীর ভিশন গ্রাম হবে শহর, রাস্তা-ঘাটসহ সকল উন্নয়ন কাজ করার প্রতিশ্রুত দিয়েছেন তৌহিদ চাকলাদার ফন্টু।

মঙ্গলবার বেলা ১১টার দিকে প্রেসক্লাব যশোরের এক মতবিনিময় সভায় সদর উপজেলাবাসীকে এ প্রতিশ্রুতি দেন তিনি। তরুণ শিল্প উদ্যোক্তা, ক্রীড়া সংগঠক ও সমাজসেবী তৌহিদ চাকলাদার ফন্টু বলেন, আমার বড় ভাই জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহীন চাকলাদার দীর্ঘ দিন সদর উপজেলার চেয়ারম্যান ছিলেন। তার আমলে অনেক উন্নয়ন হয়েছে উপজেলাতে। কিন্তু তিনি যখন উপ-নির্বাচনে কেশবপুরে এমপি নির্বাচিত হন। তখন সদর উপজেলার উন্নয়নের গতি রোধ হয়। অনেক উন্নয়ন কাজ বাকি রয়েছে। আমি সেই উন্নয়নের কাজকে আবারও গতি ফিরিয়ে আনবো। শাহীন ভাইয়ের বাকি কাজ আমি সম্পন্ন করবো ইনশাল্লাহ।’

মত বিনিময় সভায় তিনি আরও বলেন, নির্বাচনে জয়ী হলে যশোরে যানজট, মাদক, চাঁদাবাজি, চোর-ডাকাতি ও কিশোর গ্যাংয়ের উপদ্রব নির্মূল করা হবে আমার প্রধান দায়িত্ব। আমি এরই মধ্যে বেশ কিছু কর্ম পরিকল্পনা গুছিয়ে রেখেছি। আশা করছি সবাইকে নিয়ে সামাজিক সচেতনতা এবং প্রশাসনের সহয়তায় এসব অপকর্ম সমাজ থেকে নির্মূল করা হবে। আমি সদর উপজেলার চেয়ারম্যান নির্বাচিত হলে আমার ভূমিকা হবে এলাকার সমস্যা ও সমাধান নিয়ে কথা বলে আপনাদের অধিকার আদায় করা। আমি সদর উপজেলাকে স্মার্ট উপজেলা করবো। বেকারদের কর্মসংস্থান সৃষ্টি, প্রধানমন্ত্রীর ভিশন গ্রাম হবে শহর, রাস্তা-ঘাটসহ সকল উন্নয়ন কাজ করবো। এর জন্য সবার সহযোগিতা ও দেয়া কামনা করছি। একই সাথে আপনাদের মূল্যেবান ভোট প্রার্থনা করি।’

নির্বাচন পরিচালনা কমিটির প্রধান সম্বনায়ক ও জেলা কৃষকলীগের সাধারণ সম্পাদক এ্যাড. মোশারফ হোসেন বলেন, মোটরসাইকেল প্রতীকের চেয়ারম্যন প্রার্থী তৌহিদ চাকলাদার ফন্টু আওয়ামী লীগের কোন পদে না থাকলেও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহীন চাকলাদারে নির্দেশে কর্মীদের সাথে নিয়ে সদর উপজেলাতে উন্নয়নমূলক বিভিন্ন কাজ করেছেন। উপজেলাবাসী ফন্টুর কাজে সন্তুষ্ট। সদর উপজেলাবাসীর চাওয়ায় জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীরমুক্তিযোদ্ধা শহিদুল ইসলাম মিলন ও সাধারণ সম্পাদক শাহীন চাকলাদার সদর উপজেলার জন্য তৌহিদ চাকলাদার ফন্টুকে চেয়ারম্যান প্রার্থী করেছেন। একই সাথে ভাইসচেয়াম্যন হিসেবে সুলতান মাহমুদ বিপুল ও মহিলা ভাইসচেয়ারম্যান হিসেবে জ্যোৎস্না আরা মিলিকে প্রার্থী করা হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, জেলা আওয়ামী লীগের পদে না থেকে বিগত দিনে সদর উপজেলার মানুষের জন্য নিবেদিত প্রাণ ছিলেন তৌহিদ চাকলাদার ফন্টু। ২৯ মে নির্বাচনে জয়ী হয়ে সদর উপজেলাকে স্মার্ট করবে। একই সাথে উন্নয়ন কর্মকান্ডের সাথে বেকারদের কর্মসংস্থানেও কাজ করবে। ইতিমধ্যে সদর উপজেলার বিভিন্ন সমস্যা চিহৃত করা হয়েছে। ভোটে জয়ী হয়েই উপজেলার উন্নয়নে কাজে হাত দেয়া হবে।

ভাইস চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী সুলতান মাহামুদ বিপুল বলেন, আগামী দিনে আমাদের নেতা শাহীন চাকলাদার যেভাবে আপনাদের সাথে-পাশে ছিলো আমিও সেভাবে আপনাদের পাশে থাকবো। আপনরা আমার জন্য দোয়া করবেন আমি যেন বিজয়ী হয়ে সকলের সেবা করার সুযোগ পায়।

মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী জ্যোৎস্না আরা বেগম মিলি বলেন, আজকে আমি আপনাদের মাঝে হাজির হয়েছি। আপনাদের দোয়া ও সমার্থনের জন্য। আমি মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদীকা ও জাতীয় মহিলা সংস্থার চেয়ারম্যান হওয়ার কারনে তৃণমূল পর্যায় সবসময় কাজ করে থাকি। আর আমার রাজনীতি ৮০ দশক থেকে আর আমার পরিবার মুক্তিযুদ্ধ পরিবার। সেই পরিবার থেকে বেড়ে উঠেছি বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সৈনিক হিসেবে। সেই সৈনিক থেকেই বাংলাদেশের উন্নয়ন তথা যশোরের উন্নয়নের জন্য কাজ করবো। এজন্য আপনাদের সকলের সহযোগিতা, দোয়া ও সমর্থন চায়। আপনাদের দোয়া ও সমর্থন থাকলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যে স্মার্ট বাংলাদেশের স্বপ্ন, সে স্বপ্ন পূরণ করতে পারবো।

মতবিনিময় সভায় উপস্থিত ছিলেন রাখেন, যশোর সংবাদপত্র পরিষদের সভাপতি একরাম উদ দৌলা, প্রসক্লাব যশোরের সভাপতি জাহিদ হাসান টুকুন ও সাধারণ সম্পাদক এসএম তৌহিদুর রহমান, বাংলাদেশ সংবাদ সংস্থা (বাসস) প্রতিনিধি হায়দার গণি খান রিমন, দৈনিক খবরে কাগজের যশোরের স্টাফ রিপোর্টার এইচআর তুহিন ও যুগান্তরের ব্যুরো প্রধান ইন্দ্রজিৎ রায়। মতবিনিময় সভায় প্রার্থীদের সাথে উপস্থিত ছিলেন, নির্বাচন পরিচালনা কমিটির প্রধান সম্বনায়ক ও জেলা কৃষকলীগের সাধারণ সম্পাদক এ্যাড. মোশারফ হোসেন, জেলা আওয়ামী লীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক গাজী আব্দুল কাদের, শহর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদব এসএম মাহমুদ হাসান বিপু, যুগ্ম সম্পাদক ইউসুফ শাহিদ, পৌরসভার কাউন্সিলার আলমগীর কবির সুমন, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি রওশন ইকবাল শাহী, যবিপ্রবি সাবেক ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শামীম হোসেন, যবিপ্রবি ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক তানভীর হোসেন, জেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম সম্পাদক মাসুদ হাসান কৌশিক প্রমুখ। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক নিয়ামত উল্লাহ।

জাগো/আরএইচএম

আরো পড়ুন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

সর্বশেষ