যুদ্ধ শুরুর পর পশ্চিম তীরে ইসরায়েলি বসতির সংখ্যা বেড়েছে : এনজিও

আরো পড়ুন

গাজা উপত্যকায় যুদ্ধ শুরু হওয়ার পর থেকে পশ্চিম তীরে ইসরায়েলি নতুন বসতির সংখ্যা অনেক বেড়ে যাওয়ার প্রবণতা লক্ষ্য করা যাচ্ছে। ইসরায়েল ভিত্তিক একটি এনজিও এ কথা জানিয়েছে। খবর এএফপি’র।

ইসরায়েলি গ্রুপ ‘পিস নাউ’ এক প্রতিবেদনে বলেছে, ইসরায়েল ও হামাসের মধ্যে যুদ্ধ শুরু হওয়ার পর থেকে পশ্চিম তীরে নয়টি ফাঁড়ি দেখা গেছে।
গাজায় যুদ্ধ শুরু হওয়ার পর থেকে পশ্চিম তীরে সহিংসতা অনেক বেড়ে গেছে। ১৯৬৭ সাল থেকে ইসরায়েলি বাহিনী পশ্চিম তীর দখল করে রেখেছে।
অধিকৃত পশ্চিম তীরে প্রায় ৩০ লাখ ফিলিস্তিনি নাগরিক বসবাস করে। এছাড়া সেখানে চার লাখ ৯০হাজার ইসরায়েলি তাদের গড়ে তোলা বিভিন্ন বসতিতে বসবাস করে আসছে যা আন্তর্জাতিক আইন অনুযায়ী অবৈধ বলে বিবেচিত হলেও ইসরায়েল এর স্বীকৃতি দিয়েছে।

‘পিস নাউ’ বৃহস্পতিবার প্রকাশিত প্রতিবেদনে বলেছে, গাজা যুদ্ধ শুরু হওয়ার পর থেকে পশ্চিম তীরে বসতি স্থাপনাকারীদের কার্যকলাপ অনেক বেড়ে গেছে এবং সেখানে তারা রেকর্ড সংখ্যক নতুন বসতি স্থাপন করেছে।

এএফপি’র খবরে বলা হয়, ইসরায়েলের সরকারি পরিসংখ্যান অনুযায়ী ৭ অক্টোবর ইসরায়েলে হামাসের নজিরবিহীন হামলার মধ্যদিয়ে গাজায় যুদ্ধের সূত্রপাত ঘটে। সেদিন ইসরায়েলে হামাসের হামলায় প্রায় ১,১৪০ জন নিহত হয়। এদের অধিকাংশ বেসামরিক নাগরিক।

গাজার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানায়, হামাসের হামলার জবাবে ইসরায়েল প্রতিশোধমুলক গাজায় ব্যাপক হামলা শুরু করে। সেখানে তাদের হামলায় এই পর্যন্ত কমপক্ষে ২২,৬০০ জন ফিলিস্তিনি নাগরিক নিহত হয়েছে। এদের বেশিরভাগই নারী ও শিশু।

এদিকে গত ডিসেম্বরে যুক্তরাষ্ট্র কয়েক ডজন বসতিস্থাপনাকারীর উপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে। বর্তমানে তাদের আমেরিকান ভূখ-ে প্রবেশ নিষিদ্ধ।

জাগো/এসআই

আরো পড়ুন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

সর্বশেষ