যশোরের ৬টি আসনে প্রতীক বরাদ্দ চলছে, প্রচার-প্রচারণায় মাঠে নামছেন প্রার্থীরা

আরো পড়ুন

নিজস্ব প্রতিবেদক
দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনে যশোরের ছয়টি সংসদীয় আসনের ৩১ প্রার্থীদের প্রতীক বরাদ্দ দিচ্ছেন রিটার্নিং কর্মকর্তা। আজ সোমবার জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের মিলনায়তনে রিটার্নিং কর্মকর্তা ও জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আবরাউল হাছান মজুমদার সকাল পৌনে ১০টা থেকে প্রতীক বরাদ্দ দেওয়ার কার্যক্রম শুরু করেন। প্রার্থীদের প্রতীক বরাদ্দের পর নির্বাচনী আচরণবিধি মানার নির্দেশনা দেওয়া দেন রিটার্নিং কর্মকর্তা। এসময় উপস্থিত ছিলেন পুলিশ সুপার প্রলয় কুমার জোয়ারদারসহ জেলা প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্মকর্তা ও প্রার্থী এবং তাদের সমর্থকরা। এদিকে প্রতীক বরাদ্দের পর আজ থেকেই প্রতীক নিয়ে প্রচার-প্রচারণায় মাঠে নামছেন প্রার্থীরা। ঘোষিত তফশিল অনুযায়ী, নির্বাচনী প্রচারণা চলবে ৫ জানুয়ারি সকাল ৮টা পর্যন্ত। আর ৭ জানুয়ারি হবে দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনের ভোটগ্রহণ।

যশোর-১ (শার্শা) আসনে আওয়ামী লীগ দলীয় মনোনীত শেখ আফিল উদ্দিন পেয়েছেন নৌকা, স্বতন্ত্র প্রার্থী আশরাফুল আলম লিটন ট্রাক প্রতীক, জাতীয় পার্টির আক্তারুজ্জামান লাঙ্গল প্রতীকে পেয়েছেন। যশোর-২ (ঝিকরগাছা ও চৌগাছা) আসনে আওয়ামী লীগ মনোনীত ডা. তৌহিদুজ্জামান তুহিন নৌকা প্রতীক , স্বতন্ত্র আওয়ামী লীগের সাবেক এমপি মনিরুল ইসলাম ট্রাক প্রতীক , স্বতন্ত্র আওয়ামী লীগ নেতা এসএম হাবিব ঈগল পাখি , জাতীয় পার্টির ফিরোজ শাহ লাঙল ও বাংলাদেশ কংগ্রেসের আব্দুল আওয়াল ডাব , বাংলাদেশ ন্যাশনালিস্ট ফ্রন্ট- বিএনএফ এর শামছুল হক টেলিভিশন প্রতীক। যশোর-৩ (সদর) আসনে আওয়ামী লীগ মনোনীত কাজী নাবিল আহমেদ নৌকা প্রতীক, স্বতন্ত্র সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোহিত কুমার নাথ ঈগাল, বিকল্পধারা বাংলাদেশের মারুফ হাসান কাজল কুলা প্রতীক, জাতীর পার্টির মাহবুব আলম লাঙল প্রতীক, ন্যাশনাল পিপলস পার্টির অ্যাড. সুমন কুমার রায় আম প্রতীক, বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলনের মো: তৌহিদুজ্জামান বটগাছ , তূণমুল বিএনপি মো. কামরুজ্জামান সোনালী আশ, বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদি আন্দোলনের শেখ নুরুজ্জামান নোঙর।
বিস্তারিত আসছে ……..

প্রচারে প্রার্থীদের যা মানতে হবে
পোস্টার রঙিন করা যাবে না। পোস্টারে প্রার্থী ছাড়া দলীয় প্রধানের ফটো ব্যবহার করা যাবে, তবে তা দড়িতে ঝুলিয়ে প্রচার করতে হবে। ৪’শ বর্গফুট এলাকার বেশি বড় কোনো প্যান্ডেল করে প্রচার চালানো যাবে না। কাপড়ের তৈরি ব্যানার করে প্রচার চালানো গেলেও ডিজিটাল ডিসপ্লে ব্যবহার করা যাবে না। জনসাধারণের চলাচলের অসুবিধা হয়, এমন কোনো কর্মকাণ্ড থেকে বিরত থাকবে হবে। সভা করতে হলে কমপক্ষে ২৪ ঘণ্টা আগে পুলিশকে অবহিত করে অনুমতি নিতে হবে। এক্ষেত্রে সভার দিন, সময় ও স্থান সম্পর্কে উল্লেখ করে আবেদন করতে হবে।

 

জেবি/জেএইচ

আরো পড়ুন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

সর্বশেষ