নামের আগে ডিসি লাগিয়ে দাপিয়ে বেড়াচ্ছে কেশবপুরের আব্বাস

আরো পড়ুন

যশোরের কেশবপুরে নামের আগে ডিসি লাগিয়ে এলাকায় অপকর্ম চালিয়ে বেড়াচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে আব্বাস আলী ওরফে ডিসি আব্বাস নামে এক ব্যাক্তির বিরুদ্ধে। তিনি ১ নং ত্রিমোহিনী ইউনিয়নের বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ও যশোর জেলা পরিষদের ৮ নং কেশবপুর ওয়ার্ডের নির্বাচনে পদপ্রার্থী। এবং বরণডালী গ্রামের শামসের মুন্সির ছেলে।

 

স্থানী সূতে জানা যায়, এলাকায় তিনি ডিসি আব্বাস নামে পরিচিত। তার নামের আগে ডিসি লাগিয়ে স্থানীয় সহজ-সরল মানুষের কাছ থেকে দীর্ঘদিন ধরে ঘের দখল, জমি দখল ও মাছ লুট করে আসছে। এসকল অপকর্ম করার জন্য তার রয়েছে নিজস্ব লাঠিয়াল বাহিনী। এছাড়া এই আব্বাসের বিরুদ্ধে একাধিক নাশকতা মামলাও রয়েছে বলে স্থানীয় সূত্রে জানা যায়। তবে তার অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী বাহিনীর ভয়ে স্থানী গ্রামের সাধারণ খেটে খাওয়া মানুষ কেউ মুখ খুলতে চায়না। আর এই সুযোগ কাজে লাগিয়ে এলাকায় অপকর্মের জাল বিস্তার করে যাচ্ছে।

 

এ বিষয়ে আব্বাস আলীর একাধিক প্রতিবেশী জানায়, সামনে জেলা পরিষধ নির্বচনে তিনি ৮ নং কেশবপুর ওয়ার্ডের প্রতিনিধি হয়ে নির্বচন করবে। নির্বচন উপলক্ষে তিনি এলাকায় ত্রাস সৃষ্টি করে বেড়াচ্ছে। তার অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী বাহিনীর বয়ে কেউ ভয়ে তাকে কিছু বলতে পারেনা। তার অনেক টাকা আছে। আমরা তার টাকার কাছে কিছু না। তায় আমরা তার ভয়ে কিছু বলিনা।

 

আব্বাস আলীর বিরুদ্ধে আপন চাচাতো ভাই বরনডালী গ্রামের মৃত শাহাবুদ্দিন মোল্যার ছেলে মনিরুজ্জামান মোল্যা বলেন, আব্বাস তার সন্ত্রাসী বাহিনী দিয়ে আমার জমি দখল করে আমার বাড়ি থেকে বের করে দিয়েছে। শুনলাম নির্বচন করবে তাই মতবিনিময় করার সময় তিনি বলেন আমি গরিব অসহায় মানুষের বন্ধু, আমি উপজেলা বাসীকে খেদমত করতে চাই। কিন্তু যে, তার আপন ভাই ও বোনদের কে পরিচয় দেয় না, তার আপনজনের সাথে কোন সু-সম্পর্ক নাই ও তার গর্ভধারিনী মা‘কে খেদমত করতে পারিনি তার বাবা‘কে কোন দিন খোজ রাখেনি সে কিভাবে জনগণের খেদমত করবে।

 

এ বিষয়ে স্থানীয় ইউপি মেম্বর শহিদুল ইসলাম কোন মন্তব্য করতে চায়নি। তবে তিনি বলেছেন আমি যতটুকু জানি ওনার আগে ঘের ছিল এখন নেয়।

 

অভিযুক্ত আব্বাস আলীর কাছে মুটোফোনে জানতে চাইলে তিনি নির্বচনের কাজে ব্যস্ত আছেন বলে ফোন কেটে দেন।

জাগো,/আর‌এইচ‌এম 

আরো পড়ুন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

সর্বশেষ