খুলনায় প্রধানমন্ত্রীর জনসভা : স্পেশাল ট্রেনে যাবেন শার্শা ও বেনাপোলের নেতাকর্মীরা

আরো পড়ুন

আবু সাঈদ শান্ত, বেনাপোল প্রতিনিধিঃ
সোমবার (১৩ নভেম্বর) খুলনার সার্কিট হাউজ মাঠে আওয়ামী লীগ আয়োজিত জনসভায় প্রধান অতিথির ভাষণ দেবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এ আয়োজনে স্মরণকালের সর্বোচ্চ জনসমাগম নিশ্চিতে কাজ করছেন স্থানীয় নেতাকর্মীরা।

এ নিয়ে শার্শা উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের মধ্যে ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনা দেখা গেছে। উপজেলার প্রতিটি ইউনিয়ন, থানা ও পৌরসভায় চলছে সমাবেশ সফলের প্রস্তুতি। এর জন্য বেনাপোল থেকে স্পেশাল ট্রেনের ব্যবস্থা করা হয়েছে বলে জানা গেছে। শার্শা উপজেলা থেকে ৩ হাজারের বেশি নেতাকর্মী সমাবেশে অংশ নেবেন বলে জানা গেছে।

শার্শা উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ ইব্রাহিম বলেন, উপজেলা থেকে শুরু করে তৃণমূলের কর্মী ও সমর্থকরা খুবই উচ্ছ্বসিত। শার্শা উপজেলা থেকে প্রধানমন্ত্রীর জনসভায় ৩ হাজারের বেশি কর্মী ও সমর্থক অংশ নেবেন। ওইদিন কেবলমাত্র জনসভায় কর্মী ও সমর্থকদের নেওয়ার জন্য একটি স্পেশাল ট্রেন চলবে বলে জানান তিনি।

শনিবার সকালে বেনাপোল রেল স্টেশনের ভারপ্রাপ্ত স্টেশন মাস্টার মো.জাকির হোসেন জানান, একটি বেনাপোল স্পেশাল ট্রেন চলার তথ্য পেয়েছেন তিনি।
তিনি আরও বলেন, একটি আদেশ এসেছে। তাতে বলা হয়েছে প্রধানমন্ত্রীর খুলনায় জনসভা উপলক্ষে আগামী ১৩ নভেম্বর সকাল ৭টায় বেনাপোল থেকে খুলনা পর্যন্ত একটি স্পেশাল ট্রেন চলবে। ৮টি বগির এই ট্রেনটি বিকাল ৫টা বেজে ৫০মিনিটে আবার খুলনা থেকে বেনাপোল ফিরে আসবে।

উক্ত সমাবেশকে কেন্দ্র করে, খুলনাগামী মোট ১০ জোড়া স্পেশাল ট্রেন পরিচালিত হবে।

খুলনা আওয়ামী লীগের দলীয় সূত্রে জানা যায়, আগামী দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে এ সমাবেশের কারণে বিভাগের ১০ জেলায় দলের তৃণমূল নেতা-কর্মীরা আরও উজ্জীবিত হবেন। প্রধানমন্ত্রীর সমাবেশ সফল করতে তারা দফায় দফায় প্রস্তুতি নিচ্ছেন। সমাবেশে ১০ লক্ষ লোকের সমাগম ঘটানোর আশা তাদের।

প্রধানমন্ত্রীর আগমণকে কেন্দ্র করে প্রশাসনিক কর্মকর্তা, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী, সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান, বিভিন্ন পেশাজীবী সংগঠনের নেতাকর্মীরা ব্যাপক ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন।

আরো পড়ুন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

সর্বশেষ