এমএম কলেজে প্রথমবারের মতো বায়োমেট্রিক অ্যাটেনডেন্স ডিভাইস

আরো পড়ুন

নিজস্ব প্রতিবেদক 
স্মার্ট বাংলাদেশ ধারণাকে বাস্তবায়নের লক্ষ্যে সরকারি মাইকেল মধুসূদন কলেজ (এম এম) যশোরে শিক্ষার্থীদের জন্য প্রথমবারের মতো বায়োমেট্রিক অ্যাটেনডেন্স (হাজিরা) ডিভাইস স্থাপন করা হয়েছে। সোমবার সকালে কলেজের নতুন বিজ্ঞান ভবনে এ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষাবোর্ড যশোরের চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. মোঃ আহসান হাবীব।

কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর মর্জিনা আক্তারের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন উপাধ্যক্ষ প্রফেসর ড. মোঃ আবু বক্কর সিদ্দিকী, শিক্ষক পরিষদের সাধারণ সম্পাদক প্রফেসর মদন কুমার সাহা, প্রাণিবিদ্যা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক মোঃ মহসীন উদ্দীন প্রমুখ। প্রধান অতিথি প্রফেসর ড. মোঃ আহসান হাবীব বলেন, ‘শিক্ষার্থীদের কল্যাণে প্রযুক্তির সর্বোত্তম ব্যবহার বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্যতম লক্ষ্য। এ বায়োমেট্রিক অ্যাটেনডেন্স ডিভাইসের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের মৌলিক জবাবদিহিতা ও নিয়মতান্ত্রিকতা চর্চা নিশ্চিত হবে। প্রযুক্তি ও জ্ঞানের সমন্বয় যারা ঘটাতে পারবে তারাই ভবিষ্যৎ স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণে নেতৃত্ব দেবে। স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণে নিজেদের স্মার্ট নাগরিক হিসেবে গড়ে তুলতে তিনি শিক্ষার্থীদের প্রতি আহ্বান জানান।
কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর মর্জিনা আক্তার বলেন, ‘স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণের অগ্রযাত্রায় এবং শিক্ষার্থীদের স্মার্ট নাগরিক হিসেবে গড়ে তুলতে; তাদের জন্য স্মার্ট শিক্ষার পরিবেশ সৃষ্টিতে কাজ করে যাচ্ছে সরকারি মাইকেল মধুসূদন কলেজ প্রশাসন। এডুকেশন ম্যানেজমেন্ট সফটওয়্যারের মাধ্যমে সকল শিক্ষার্থীকে সমন্বিত প্রযুক্তি ব্যবস্থাপনার আওতায় আনা হয়েছে। আজ এ নতুন উদ্যোগের মাধ্যমে আরো এক ধাপ এগিয়ে গেল সরকারি মাইকেল মধুসূদন কলেজ। আমরা এ ধরনের নতুন নতুন প্রযুক্তির মধ্য দিয়ে নতুন জয়যাত্রায় শামিল হব এবং স্মার্ট দেশ গড়তে এগিয়ে যাব।’ ইতিহাস বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মোঃ শাহ্‌জাহান কবীবের সঞ্চলনায় অনুষ্ঠানে কলেজের ১৯টি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান ও অধ্যাপকবৃন্দ, শিক্ষক ও শিক্ষার্থীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

কলেজ সংশ্লিষ্ঠরা জানিয়েছেন মাধ্যমিক, স্নাতক ও স্নাতকোত্তর পর্যায়ে শ্রেণিকক্ষে শিক্ষার্থী বৃদ্ধির নিশ্চিতকরণে প্রাথমিকভাবে নতুন বিজ্ঞান ভবনে বিজ্ঞান শাখার শিক্ষার্থীদের জন্য দুটি বায়োমেট্রিক অ্যাটেন্ডেন্স ডিভাইস, আব্দুল হাই কলা ভবনের দ্বিতীয় তলায় ২১২ নম্বর কক্ষের সামনে মানবিক শাখার শিক্ষার্থীদের জন্য একটি এবং ব্যবসায় প্রশাসন বিভাগের চতুর্থ তলায় ৪০২ নম্বর কক্ষের সামনে বাণিজ্য শাখার শিক্ষার্থীর জন্য একটি ও ইতিহাস বিভাগে একটি বায়োমেট্রিক অ্যাটেন্ডেন্স ডিভাইস (ফেস লগ-ইন) স্থাপন করা হয়েছে।

 

জেবি/জেএইচ 

 

আরো পড়ুন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

সর্বশেষ